কোন সফটওয়্যার দিয়ে টাকা ইনকাম করা যায়

কোন সফটওয়্যার দিয়ে টাকা ইনকাম করা যায়। এমন প্রশ্নটা আপনার মনে কোনো না কোনো সময় উঁকি দিতে পারে। কারন আমরা যারা অনলাইন যোদ্ধা আছি।

তারা সবসময় চেস্টা করি, যেন অনলাইন থেকে কিছু পরিমান টাকা ইনকাম করা যায়।

আপনার এমন চেস্টাকে আমি সাধুবাদ জানাই। কেননা, আমরা প্রতিদিন ঘন্টার পর ঘন্টা অনলাইনে ব্যয় করছি। সেই সময় গুলোর মধ্যে যদি অনলাইনে টুকটাক কাজ করে নিজের পকেট খরচটা ম্যানেজ করা যায়।

তাহলে MB খরচের জন্য আর বাবার টাকা নষ্ট করতে হবে না।

আর আজকের এই আর্টিকেলটি মূলত সেই উদ্দেশ্যেই লেখা হয়েছে। আজকে আপনি জানতে পারবেন কিভাবে সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

কারন আজকের দিনে কিন্তুু আপনার মতো এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত বিপুল পরিমান টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে আসছে।

হ্যালো বন্ধু, স্বাগতম আপনাকে protibad এর আরো একটি নতুন একটি এপিসোডে। আজকের এপিসোড থেকে আপনি জানতে পারবেন, কিভাবে সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা যায়

তো যদি আপনি সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে।

তাই আজকের পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন। তাহলে কথা দিচ্ছি আজকের পর থেকেও আপনিও খুব সহজেই সফটওয়্যার থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। 

সফটওয়্যার কি? 

কিভাবে আপনি সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করবেন। সে বিষয়ে তো আমরা অবশ্যই আলোচনা করবো। তবে সবার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে এই সফটওয়্যার কাকে বলে।

তাহলে পরবর্তী আলোচনা গুলো আপনার বুঝতে সুবিধা হবে।

দেখুন সফটওয়্যার হলো এমন কিছু কোডিং এর সমন্বয়। যা কম্পিউটার এর কোনো কাজকে সহজ করার জন্য তৈরি করা হয়ে থাকে।

যেমন, আমরা মোবাইলের মাধ্যমে বড় বড় অংকের হিসেব করার জন্য ক্যালকুলেটর ব্যবহার করি।

ঠিক তেমনি ভাবে কম্পিউটার এর মতো ডিভাইস গুলোতে কোনো কাজ সহজে করার জন্য কোডিং এর মাধ্যমে  সফটওয়্যার তৈরি করা হয়ে থাকে।

তবে মোবাইল ডিভাইস এর জন্য যেসব এপস তৈরি করা হয়। সেগুলোতে মূলত (.apk) এক্সটেনশন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিন্তুু আপনি যদি কম্পিউটার রিলেটেড সফটওয়্যার গুলোর দিকে তাকান।

তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে সফটওয়্যারে সাধারনত (.exe) এক্সটেনশন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। 

সত্যিই কি সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা সম্ভব? 

উপরের আলোচনা থেকে আমরা সফটওয়্যার কি সে সম্পর্কে জানতে পারলাম।

দেখুন বর্তমান সময়ে যে অনলাইন থেকে আয় করা যায়। এটা তো আমরা কমবেশি সবাই জানি, তাইনা? আর এই কারনেই কিন্তুু আপনি সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য গুগলে সার্চ করেছেন।

আপাততো শুধু এটুকুই জেনে রাখুন যে, বর্তমান সময়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করা সম্ভব।

যেহুতু আপনি এটুকু জানলেন যে অনলাইন থেকে আয় করা যায়। সেহুতু আরও একটা কথা জেনে রাখুন যে, আজকের দিনে অনলাইন থেকে আয় করার জন্য এমন অনেক রকমের পদ্ধতি আছে।

আর তার মধ্যে একটি অন্যতম পদ্ধতি হলো, সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা। কেননা, এই পদ্ধতি থেকে আপনার মতো অনেক মানুষ বেশ ভালো পরিমান টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে আসছে।

সেই সফটওয়্যার গুলোতে কাজ করে বেশ ভালো পরিমান টাকা ইনকাম করে আসছে। 

কারা সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবে?

দেখুন আমি যতোই বলিনা কেন যে, বর্তমানে অনলাইন থেকে টাকা আয় করা যায়। সব মানুষ কিন্তুু এই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবে না।

বাস্তবিক জীবনে যেমন সবার কপালে চাকরি জোটে না, ঠিক তেমনি ভাবে অনলাইন জগতে কিন্তুু সবার কপালে ইনকাম জোটে না।

তবে প্রশ্ন হলো যে, কারা এই সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবে? -তো চলুন এবার সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

দেখুন এই কাজ গুলো যেহুতু অনলাইন ভিওিক। সেহুতু এই কাজ গুলোর মাধ্যমে শুধুমাএ তারাই ইনকাম করতে পারবে। যারা মূলত টুকটাক অনলাইনে সময় ব্যয় করে।

যারা অনলাইন সেক্টরের সমস্ত খুটিনাটি সম্পর্কে জানে।

কেননা, কেউ যখন কোনো সরকারি বা বেসরকারী চাকরি করার জন্য যেমন অনেক কাঠঘর পোড়াতে হয়। ঠিক তেমনি ভাবে আপনি যখন অনলাইনে কোনো কাজ করে টাকা আয় করার চেস্টা করবেন।

তখনও কিন্তুু আপনাকে যথেষ্ট পরিমান সময় এবং শ্রম ব্যয় করতে হবে।

তবে আবার এটা ভাইবেন না যে, আপনি বিনা কোনো শ্রম বা দক্ষতা ছাড়াই সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বরং এখান থেকে আয় করার জন্যও আপনাকে যথেষ্ট প্রতিভাবান এবং শ্রম ব্যয় করতে হবে।

তাহলেই কিন্তুু আপনি অনলাইনের মাধ্যমে সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

সফটওয়্যার থেকে ইনকাম করার জন্য কি কি লাগবে?

উপরোক্ত আলোচনা থেকে আপনি বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। যেমন, শুরুর দিকে আপনি জানতে পেরেছেন যে, সফটওয়্যার কাকে বলে।

এরপর আপনি জেনেছেন যে, সত্যিই কি সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা যায় কিনা। তো আশা করি আপনি উপরের এই তথ্য গুলো সম্পর্কে পরিস্কার একটা ধারনা পেয়ে গেছেন। 

তো এবার আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, একজন নতুন ব্যক্তি হিসেবে আপনি যদি সফটওয়্যার থেকে টাকা আয় করতে চান। তাহলে আপনার কি কি ইকুইপমেন্ট এর প্রয়োজন হবে।

কারন অস্ত্র ছাড়া যেমন যুদ্ধ করা অসম্ভব। ঠিক তেমনি এমন কিছু জিনিস আছে। যেগুলো ছাড়া আপনি অনলাইন এর কোনো কাজ করতে পারবেন না।

এখন আপনি যদি অনলাইনে কাজ করতে চান। তাহলে এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ইকুইপেমন্ট আছে। যেগুলো আপনার অবশ্যই প্রয়োজন হবে। যেমনঃ 

০১| একটি ভালো মানের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ/মোবাইল

যেহুতু আপনি অনলাইনের মাধ্যমে সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করবেন। সেহুতু আপনার হাতের নাগালে অবশ্যই একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ অথবা ভাল মোবাইল থাকতে হবে। 

কেননা, এই কাজের মুল উপকরন হলো একটি ডিভাইস থাকতে হবে।

তো এই কথাটি জানার পর হয়তবা আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে। আপনার কাছে যে কম্পিউটার থাকতে হবে। সেটির কনফিগারেশন কেমন হতে হবে?

মানে সেই কম্পিউটার টি হাই কোয়ালিটি হতে হবে নাকি লো কোয়ালিটির হলেও চলবে।

এই প্রশ্নের উওরে আমি বলবো যে, বর্তমান সময়ে অনলাইনে যেসব সফটওয়্যার দিয়ে টাকা ইনকাম করা যায়। সেগুলো যেন আপনার ডিভাইসে স্মুথলি ব্যবহার করা যায়।

আপনার হাতে সেরকম একটা কম্পিউটার থাকলেই যথেষ্ট। কেননা, আপনি কিন্তুু এই সফটওয়্যার গুলো থেকেই টাকা ইনকাম করবেন৷ 

০২| একটি ভালো মানের ইন্টারনেট কানেকশন 

যেহুতু আপনি অনলাইন এর মাধ্যমে কাজ করে টাকা আয় করবেন। সেহুতু আপনার অবশ্যই যে ইন্টারনেট কানেকশন এর প্রয়োজন হবে।

এ বিষয়টি তো আমার থেকে আপনিই ভালো বুঝবেন। কারন ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়া তো আপনি অনলাইন জগতে পা ফেলতে পারবেন না।

তবে আপনার ডিভাইসে শুধু Internet Connection থাকলেই হবে না। বরং উক্ত ডিভাইসে যে কানেকশন টি থাকবে। সেটি অবশ্যই দ্রুত গতি সম্পন্ন হতে হবে। কারন আপনার ইন্টারনেট যদি স্লো হয়।

তাহলে আপনি কাজের দিক থেকে অন্যদের তুলনায় অনেক গুন পিছিয়ে পড়বেন। যার ফলে আপনার অনলাইন থেকে আয় এর পরিমানও তুলনামূলক ভাবে অনেক কম হবে। 

০৩| অনলাইন থেকে টাকা আয় করার ইচ্ছা 

কথায় আছে ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়। আর সে কথাটি হাড়ে হাড়ে টের পাবেন ৷ যখন আপনি অনলাইনে কোনো কাজের বিনিময়ে টাকা আয় করার চেস্টা করবেন।

কারন আপনি অনেক মানুষকে দেখবেন। যারা মূলত অনলাইন ইনকাম করার জন্য উঠে পড়ে লাগে৷ কিন্তুু কোনো একটা সময়ে গিয়ে তারা হাল ছেড়ে দেয়। এবং এই অনলাইন সেক্টর থেকে ছিটকে পড়ে।

কিন্তুু আপনি যেন কোনভাবে ছিটকে না পড়েন ৷ সেদিকে যথেষ্ট খেয়াল রাখতে হবে। আপনার মনের ভিতরে অনলাইন ইনকাম করার যে ইচ্ছা থাকব

সেটিকে একেবারে মজবুত করতে হবে। আপনাকে সিন্ধান্ত নিতে হবে যেভাবেই হোক আপনি অনলাইন থেকে আয় করেই ছাড়বেন। তাহলেই মূলত আপনার online income করার স্বপ্নটি পূরন হবে। 

সফটওয়্যার থেকে কত টাকা ইনকাম করা যাবে?

এটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন। যা আমাদের প্রত্যেকের মনে জেগে থাকে। সেটি হলো, বর্তমান সময়ে সফটওয়্যার থেকে আয় করা যায়।

এটা তো আমি বা আপনি বুঝলাম। কিন্তুু এই সফটওয়্যার থেকে মোট কত টাকা আয় করা যাবে। সে সম্পর্কে একটা পূর্ব ধারনা থাকা উচিত। কারন আপনি এই কাজ করে মোট কত টাকা আয় করতে পারবেন।

সেটি যদি আগে থেকে না জানেন। তাহলে কিন্তুু আপনার কাজের প্রতি তেমন একটা আগ্রহ থাকবে না।

তো শুরুতেই আমি আপনাকে কিছু কথা বলবো। ভাই দেখুন আমি অন্যান্য ব্লগ বা ইউটিউবার এর মতো আপনাকে বলবো না যে আপনি এই কাজটি করলে মাসে লাখ লাখ টাকা আয় করতে পারবেন।

কেননা, সামান্য কিছু ভিজিটর এর জন্য আপনাকে কোনো প্রকার মিথ্যে কথা বলতে পারবো না।

তো যেটা সত্যি কথা হলো আমাদের যে, আপনি যদি আজকের আলোচিত সফটওয়্যার গুলোতে কাজ করেন ৷ তাহলে আপনি কিছু পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন।

সেগুলো দিয়ে আপনার সংসার চলবে না। কিন্তুু আপনি আপনার নিজের পকেট মানির খরচটা অনায়াসেই চালিয়ে নিতে পারবেন।

এখন যদি আপনি টাকার অংকের কথাটা শুনতে চান। তাহলে বলবো আপনি যদি দৈনিক ৫-৬ ঘন্টা করে কাজ করেন ৷

তাহলে আপনি এই সামান্য পরিমান সময় ব্যয় করার মাধ্যমে আপনি কমপক্ষে ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। যা আপনার বাড়িতে অযথা বসে না থেকে এই সামান্য টাকা গুলো অনেক বেশি উপকারে আসবে।

কোন গুলো সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা যায়?   

যাক দেখতে দেখতে আমরা আর্টিকেল এর মুল টপিকে ফিরে এসেছি। আমরা এতোক্ষন থেকে সফটওয়্যার থেকে আয় রিলেটেড অনেক তথ্য সম্পর্কে জানতে পেরেছি।

আশা করি সেই তথ্য গুলো আপনি বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

তো এবার আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, এমন কোনো কোন সফটওয়্যার আছে। যেগুলো তে আপনি কাজ করতে পারবেন। এবং সেই কাজের বিনিময়ে আপনি অনলাইন থেকে টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, বর্তমান সময়ে আপনি নেটে সার্চ করলে এমন অনেক সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে পারবেন। যেগুলো থেকে মূলত টাকা আয় করা সম্ভব।

কিন্তুু সেই সব গুলো সফটওয়্যারে কাজ করলে আপনি যে শতভাগ পেমেন্ট নিতে পারবেন। তার কোনো গ্যারান্টি দিতে পারবেন না।

কারন আপনার মতো এমন অনেক মানুষ আছেন। যাদের মূল কাজ হলো স্ক্যামিং করা। অর্থ্যাৎ তারা আপনার সময় ও শ্রম ব্যয় করে কাজ ঠিকই করিয়ে নিবে।

Meesho হলো একটি রিসেলিং টাইপের কাজ। যেখানে আপনি তাদের পন্য গুলোকে কাস্টমার এর নিকট পৌঁছে দিবেন। এবং কাস্টমার যখন meesho এর কোনো পন্য কিনে নিবে।

তখন আপনি সেই পন্য বিক্রির করার বিনিময়ে কিছু পরিমান টাকা কমিশন হিসেবে আয় করে নিতে পারবেন।

যেমন ধরুন, আপনি যদি তাদের একটি পন্য ১০০ টাকাতে সেল করে দিতে পারেন। তাহলে তারা আপনাকে এই কাজের বিনিময়ে ২০/- কমিশন দিলো।

ঠিক এভাবেই আপনি এই Meesho থেকে ভালো পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন। 

০২| Cointiply (Earning Software)

অনলাইন এর মাধ্যমে সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করার আরও একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো Cointiply. যেখানে আপনি মাইক্রো নিস টাইপের কাজ করে প্রচুর পরিমান টাকা নিজের ঘরে বসে আয় করে নিতে পারবেন।

এবং এখানে আপনি সরাসরি টাকা তে আয় করতে পারবেন না। বরং আপনাকে বিটকয়েনে আর্ন করতে হবে।

Cointiply হলো মূলত একটি মাইক্রো নিস ওয়েবসাইট। যেখানে আপনি অনলাইন এর যেসব ছোটো খাটো কাজ আছে। যেমন, এড ভিউ করা, সফটওয়্যার ইনস্টল করা, গেম খেলে টাকা আয় করা ইত্যাদি।

এগুলো মূলত অনেক সহজ কাজ যেগুলো করার জন্য আপনার তেমন কোনো দক্ষতার প্রয়োজন হবে না।

তবে মূল সমস্যা হলো Cointiply তে আপনি সরাসরি টাকা আর্ন করতে পারবেন না। বরং আপনি এখান থেকে বিটকয়েনে আর্নিং করতে পারবেন।

এবং পরবর্তী সময়ে সেই বিটকয়েন গুলো কে টাকায় কনভার্ট করে নিতে পারবেন। 

০৩| Google’s Opinion Rewards

এটি হলো অনলাইন থেকে টাকা আয় করার সবচেয়ে বিশ্বস্ত একটি মাধ্যম। যেটি বর্তমান সময়ের অনলাইন এর জায়েন্ট কোম্পানি Google নিজেই পরিচালনা করে থাকে।

তাই আপনি এখানে একেবারে নিশ্চিন্তে কাজ করতে পারবেন। এবং এই সেক্টরে আপনার স্ক্যামিং হওয়ার মতো কোনো সম্ভাবনা থাকবে না।

এখানে আপনি মূলত বিভিন্ন সার্ভে করতে পারবেন। যেখানে আপনাকে গুগল কতৃক বিভিন্ন টপিকে প্রশ্ন করা হবে। এবং আপনি সেই প্রশ্ন গুলোর উওর দিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

এবং সেই টাকা গুলোর আপনি গুগল কার্ডের মাধ্যমে উইথড্র করে নিতে পারবেন। এই গুগল কার্ড দিয়ে Google Play Store থেকে বিভিন্ন পেইড এপস কিনে নিতে পারবেন। 

০৪| Frapp (Earning Software)

এবার আমি আপনাদের টাকা আয় করার দারুন একটা সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করবো। যেখানে আপনি আপনার তোলা ফটো থেকে বেশ ভালো পরিমান টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

যেখানে আপনাকে তেমন শ্রম দিতে হবে না। বরং এই কাজের বিনিময়ে আপনি বেশ ভালো পরিমান টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে নিতে পারবেন।

আপনি আপনার আশেপাশে সংঘটিত কোনো ট্রেন্ডিং টপিক, বিয়ের অনুষ্ঠানের আনন্দঘন মুহূর্ত বা ইভেন্টের পিক তুলে সেগুলো কে শেয়ার করার মাধ্যমে একটা মোটা অংকের টাকা অনলাইন ইনকাম করে নিতে পারবেন। 

০৫| Loco –play game earn money

বন্ধুরা আপনরা অনেকেই গেম খেলে টাকা আয় করতে চান। কিন্তুু সঠিক গেম না পাওয়ার কারনে আপনারা গেম খেলে টাকা আয় করতে পারেন না।

কিন্তুু আজকে আমি আপনাদের এমন একটি মাধ্যম সম্পর্কে জানাবো। যেখানে আপনি কোনো প্রকার কাজ না করে শুধু গেম খেলে টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

আজকের দিনে গেম খেলে টাকা আয় করার জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম হলো Loco  – play game earn money.

এটি মূলত একটি ইন্ডিয়ান কোম্পানি সরাসরি পরিচালনা করে থাকে। তো এখানে বিভিন্ন কোম্পানি থেকে যারা গেম ডেভলোপ করে। তারা এই Loco নামক প্লাটফর্মের মানুষদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়।

তো আপনি যদি Loco এর একজন নিয়মিত ইউজার হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি এখানে বিভিন্ন ধরনের গেম খেলতে পারবেন ৷

এবং আপনার সেই গেম গুলো খেলার এক্সপ্রিয়েন্স শেয়ার করে বেশ মোটা অংকের টাকা Loco থেকে অনলাইন ইনকাম করে নিতে পারবেন। 

০৬| Current rewards

আজকের আর্টিকেল এর সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করার সর্বশেষ মাধ্যমের নাম হলো Current rewards. যেখান থেকে আপনি আপনার নিজের ঘরে বসে বেশ মোটা অংকের টাকা অনলাইন থেকে আয় করার সুযোগ পাবেন।

বর্তমানে আপনার মতো অনেক ছেলে মেয়ে এই Current rewards থেকে আয় করে আসছে। তাই চাইলে আপনিও এখানে টাকা আয় করে নিতে পারবেন

আপনি অনেক সময় শুনে থাকবেন যে আজকের দিনে গেম খেলে টাকা ইনকাম করা যায়। হয়তবা এটি শোনার পর আপনার বিশ্বাস না হতে পারে।

কিন্তুু আজকে আমি আপনাদের এমন একটি মাধ্যমের কথা শেয়ার করবো। যেখানে আপনি গেম খেলে টাকা আয় করার মতো অনেক ছোট ছোট কাজ করে আয় করতে পারবেন।

তবে এখানে শুধু গেম খেলে টাকা ইনকাম করা নয়। বরং আপনি এখানে গান শুনে, এপস ইনস্টল করেও টাকা আয় করে নিতে পারবেন। তাই আপনি চাইলে এখানে কাজ করেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

আপনি কি কি শিখতে পারলেন? 

আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল থেকে আপনি যে যে বিষয় গুলি শিখতে পারলেন। সেগুলোকে পুনরায় আরেকবার রিপিড করবো। যেন আপনি সেই গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলো ভুলে না যান।

আজকে আমরা সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করার বেশ কিছু তথ্য সম্পর্কে জেনেছি। যেমনঃ 

আশা করি এই সমস্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে বেশ ভালো ভাবে ধারনা নিতে পেরেছেন। আর যদি না বুঝে থাকেন৷ তাহলে আপনাকে এই আর্টিকেলটি পুনরায় আরেকবার পড়ার জন্য অনুরোধ করবো। 

আমাদের শেষকথা 

আশা করা যায় যে, আজকের এই আর্টিকেল থেকে কিভাবে সফটওয়্যার থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। সে সম্পর্কে ক্লিয়ার ধারনা পেয়ে গেছেন।

তবে এরপরও যদি আপনার সফটওয়্যার থেকে টাকা আয় রিলেটেড আর কোনো প্রশ্ন থাকে। তাহলে নিচে ছোট্ট করে একটা কমেন্ট করবেন।

Leave a Comment